3:44 pm - Monday June 26, 2017

দুবাইয়ে শ্রমিকদের জন্য দুপুরে ছুটি বাধ্যতামুলক করা হয়েছে

মধ্যপ্রাচ্যে এই মাসগুলোতে প্রচুর গরম পড়ে। এই সময় এখানকার তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রী ছাড়িয়ে যায়। তাই দুবাই সরকার আজ থেকে তিন মাস দুপুরে লম্বা বিরতি বাধ্যতামূলক করায় এখানকার শ্রমিকরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

অনেক শ্রমিক, যারা খোলা আকাশের নিচে কাজ করেন, তারা রমযান মাসে রোযাও রাখেন। তাপ এবং ভারি শ্রমের কারণে অনেকটা অসহনীয় অবস্থার সৃষ্টি হয়।

নীল রঙের পোশাক পড়া শ্রমিকদের খোলা আকাশের নিচে দীর্ঘক্ষণ কাজ করতে হয়। কখনো কখনো ছয় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে ৫০ ডিগ্রী তাপের মধ্যে কাজ চালিয়ে যেতে হয়।

তাই সংযুক্ত আরব আমিরাতের মানবাধিকার সংস্থার মানবাধিকার বিষয়ক মন্ত্রণালয় দ্বারা দুপুরের বিরতি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ১৫ জুন থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর, দুপুর ১২:৩০ মিনিট থেকে ৩ টা পর্যন্ত কাজে বিরতি ঘোষণা করা হয়েছে।

দুবাইয়ে কর্মরত এক বাঙালি যিনি প্রতি মাসে প্রায় ২০০০ দেরহাম আয় করেন তিনি বলেন যে, একবার অতিরিক্ত তাপে অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলেন। ২৯ বছর বয়সী এক শ্রমিক বলেন, “দুপুরের এই বিরতি পেয়ে আমরা অনেক খুশি। আমি রোযা রেখেছি তাই রোযা রেখে দুপুরে গরমের মধ্যে কাজ করা প্রায় অসম্ভব”।

দুপুরের বিরতির নিয়ম অনুযায়ী কাজের সময়কে দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে সকাল এবং সন্ধ্যা। এই দুই সময় মিলিয়ে শ্রমিকরা মোট ৮ ঘণ্টা কাজ করতে পারবে। যদি কোন শ্রমিক এর থেকে বেশি কাজ করে তবে তাকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। এই সময় দুবাই পুলিশ বিভিন্ন জায়গা পরিদর্শন করবেন। যদি কোন শ্রমিক বিরতির সময় কাজ করে তবে তাকে ৫০০০ দেরহাম জরিমানা করা হবে। আর যদি ঐ কাজে শ্রমিক বেশি থাকে তবে সর্বোচ্চ ৫০,০০০ দেরহাম জরিমানা করা হবে।

মেজর জেনারেল ওবায়েদ মুহেইর বিন সুরর, দুবাইয়ে রেসিডেন্সি জেনারেল ডিরেক্টর এবং বিদেশের বৈদেশিক সম্পর্ক বিষয়ক উপ-পরিচালক এবং দুবাইয়ে শ্রম বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি বলেন, “ কমিটি সাতটি পেট্রোল বা পাহারা পরিচালনা করবে। প্রতিটি পেট্রোল বা পাহারায় তিন জন করে অফিসার থাকবে। তারা শ্রমিকদের বিরতি নিশ্চিত করতে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করবেন”।

তিনি উল্লেখ করেন যে, এই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে শ্রমিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করেবে এবং তাদের কাজের সময় তাদের জন্য একটি নিরাপদ কর্ম পরিবেশের পাশাপাশি পেশাগত নিরাপত্তা প্রদান করেবে।


Filed in: প্রবাস
[X]