4:11 am - Thursday May 24, 2018

ঢাবির হলগুলো এখন ছাত্রলীগের নিয়ন্ত্রণের বাইরে

কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) হলগুলো এখন ছাত্রলীগের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে। ছাত্রলীগের হুমকি-ধামকি উপেক্ষা করে শিক্ষার্থীরা এখন স্বতঃস্ফূর্তভাবে দলে দলে কোটা সংস্কার আন্দোলনে যোগ দিচ্ছেন।

জানা যায়, কোটা সংস্কার আন্দোলনের শুরু থেকেই এ আন্দোলনে মৌন সমর্থন ছিলো হল শাখার ছাত্রলীগের কর্মীসহ সাধারণ শিক্ষার্থীদের। তবে হল শাখার ‘গুরুত্বপূর্ণ’ নেতাদের ভয়ে তারা আন্দোলনে যোগ দিতে পারেননি। কিন্তু কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী কর্তৃক কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ‘রাজাকারের বাচ্চা’ বলায় ক্ষুব্ধ এসব নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা নেতাদের হুমকি-ধমকিকে তোয়াক্কা না করে কোটা সংস্কারের আন্দোলনে নামে।

এছাড়া গতকাল মঙ্গলবার (১০ এপ্রিল) রাতে কবি সুফিয়া কামাল হল ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান এশা কর্তৃক এক আন্দোলনকারীকে মেরে রক্তাক্ত করায় এ আন্দোলনে জনসম্পৃক্ততা আরো বাড়ে এবং ছাত্রলীগ আরো সমর্থনহারা হয়ে পড়ে। মঙ্গলবার গভীর রাতে কবি সুফিয়া কামাল হলে এক আন্দোলনকারীকে নির্যাতন করায় শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করে। শিক্ষার্থীদের চাপের মুখে হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান এশাকে প্রথমে হল এবং ছাত্রলীগ থেকে, পরে অবস্থা বেগতিক দেখে বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও তাকে বহিষ্কার করা হয়।

শিক্ষার্থী নির্যাতনের খবর ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন হল থেকে শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে কবি সুফিয়া কামাল হলের গেট অবরোধ করে। তবে এ সময় বিভিন্ন হল থেকে শিক্ষার্থীদের আসতে বাধা দেয় ছাত্রলীগ। বন্ধ করে দেয়া হয় বিভিন্ন হলের গেট। কিন্তু কোন বাধাই শিক্ষার্থীদের গণজোয়ারের মুখে টিকতে পারে নি। গেট ভেঙ্গে বিভিন্ন হল থেকে শিক্ষার্থীরা এ সময় সুফিয়া কামাল হলের সামনে যায়।

এসময় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতিসহ বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতার সামনে দিয়েই  মল চত্বর হয়ে বিভিন্ন হলের নেতাকর্মীরাসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা মিছিলযোগে সুফিয়া কামাল হলের সামনে যায় যায়। তবে শুধু চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া ছাত্রলীগের আর কিছুই করার ছিলো না। কারণ ততক্ষণে এ আন্দোলন গণ আন্দোলনে রূপ নিয়েছে।


Filed in: ক্যাম্পাস